ঝালকাঠিতে গাছ কাটার মামলায় খালাশ পেয়েছেন সওজ’র কার্য সহকারি আবুল হোসেন

0

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঝালকাঠিতে দোষী সাবস্ত না হওয়ায় মামলা থেকে খালাশ পেয়েছেন বরিশাল সড়ক জনপদ বিভাগের কার্য সহকারি মো. আবুল হোসেন (৬০)। রবিবার ঝালকাঠি জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেড প্রথম আদালতের বিচারক এএইচ ইমরানুল রহমান এ আদেশ প্রদান করেন। মামলার আসামী পক্ষের আইনজীবী ফয়সাল খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মামলার নথি থেকে জানাগেছে, ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে বরিশাল সড়ক ও জনপদ বিভাগের ঝালকাঠি জেলার নলছিটির অংশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাস্কর্য নির্মান করার জন্য কিছু গাছ বিক্রি করা হয়। বরিশাল সড়ক ও জনপদ বিভাগ এই গাছ বিক্রি করে সরকারি কোষাগাড়ে টাকা জমা দেয়। পাশাপাশি এই গাছ যারা দেখাশোনা করত তাদেরকেও নিয়ম অনুযায়ে টাকা পরিশোধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু ঝালকাঠি জেলা সহকারি বন কর্মকর্তা জিয়াউল ইসলাম বাকলাই বন বিভাগের গাছ কাটার অভিযোগ এনে ২০১৮ সালের ২৫ জানুয়ারি মো. আবুল হোসেন এর নামে ঝালকাঠির আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ৩৭/১৮ নল। তবে এই মামলায় মো. আবুল হোসেন এর বরিশাল সড়ক ও জনপদ বিভাগের কার্য সহকারির পরিচয় গোপন রাখা হয়। দোষী সাবস্ত না হওয়ায় বরিশাল সড়ক ও জনপদ বিভাগের কার্য সহকারি মো. আবুল হোসেনকে আদালত মামলা থেকে বেখসুর খালাশ প্রদানের আদেশ দেন। বরিশাল সড়ক জনপদ বিভাগের কার্য সহকারি মো. আবুল হোসেন বলেন, ‘ ঝালকাঠি জেলা সহকারি বন কর্মকর্তা জিয়াউল ইসলাম বাকলাই গাছ কাটার মিথ্যা অভিযোগ এনে আমার বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। যে মামলাটি ছিল উদ্দেশ্য প্রনোদিত। আমি এই মামলায় আদালত থেকে খালাশ পেয়েছি। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে মামলা করে আমাকে হয়রানি করেছে আমি এর বিচার চাই। আমি এব্যাপারে আদালতে মামলা করব।

Share.

Leave A Reply